ঢাকা : মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮

সংবাদ শিরোনাম :

  • সততার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে : সিইসি          নির্বাচনের তারিখ পেছানোর কোনো সুযোগ নেই : সিইসি          দুই দেশের সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাক : মমতা          জীবনমান উন্নয়নের শিক্ষাগ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী          বঙ্গবন্ধুর নাম কেউ মুছতে পারবে না : জয়
printer
প্রকাশ : ২৫ নভেম্বর, ২০১৮ ১৫:৩৪:১৯
সততার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে : সিইসি
টাইমওয়াচ রিপোর্ট


 


একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিকভাবে সৎ থেকে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।
২৫ নভেম্বর রোববার সকালে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের উদ্দেশ্যে নির্বাচনী আচরণ বিধিমালাসংক্রান্ত ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন সিইসি।
সিইসি বলেন, ‘নিরপেক্ষ দায়িত্ব পালনের ব্যাপারে আপনাদের সবাই বলেছেন। আমি আবারও বলি, আপনাদের দায়িত্ব হবে রাজনৈতিকভাবে সৎ। সবাইকে সমান চোখে দেখা, কারো জন্য বেশি দেখা, কারো জন্য কম দেখা- এ ধরনের আচরণ কখনো আপনারা করবেন না। কথায় আছে, হাকিম নড়ে কিন্তু হুকুম নড়ে না। এরকম যেন হুকুম হয়, যেটা নড়বে না কখনো। এই জিনিসগুলো আপনাদের দেখতে হবে।’
তিনি হুদা বলেন, কঠোরভাবে যেটা দেখবেন, প্রিজাইডিং অফিসার যেন নিরাপদে থাকে। প্রিজাইডিং অফিসারের ওপর প্রচুর চাপ থাকে। তার ওপরে সব দায়িত্ব থাকে ওই এলাকার। তাদেরকে সহযোগিতা করা আপনাদের দায়িত্ব, তাদেরকে কখনো পরিচালনা করতে যাবেন না। তাহলে ভুল হয়ে যাবে। তারা যখন যে সহযোগিতা চাইবে, সেটা করবেন। সহযোগিতা চাওয়ার পরিস্থিতি না থাকলে সেখানে আপনাদের বিবেক-বিবেচনার প্রয়োগ করবেন।
এ সময় কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেন, একটা কথা বলা হয়ে থাকে নির্বাচন আইনানুগ হতে হবে। এ কথাটা অবশ্যই ব্যাখার অবকাশ রাখে। আইনকে নিজস্ব পথে চলতে না দিলে নির্বাচন কখনো আইনানুগ হতে পারে না। সুতরাং যখনই আমরা বলব, নির্বাচন আইনানুগ হতে হবে তখন এর সঙ্গে এও বলতে হবে, আইনকে তার নিজস্ব পথেই চলতে দিতে হবে। এটা করার দায়িত্ব কিন্তু আপনাদের। নিরপেক্ষভাবে আইনের প্রয়োগ না করলে সে আইন আইন নয়, কালো আইন।
নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের উদ্দেশ্যে কমিশনার অরসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদাৎ হোসেন চৌধুরী বলেন, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন যেন সুষ্ঠু অবাধ ও আইনানুগ করতে পারি, এ ক্ষেত্রে আপনাদের কর্মকাণ্ড একদম নিরপেক্ষ থাকতে হবে। কোনো রকম প্রতিহিংসার সুযোগ যাতে না থাকে। আপনাদের আদেশেই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী গুলি চালাবে। এ ক্ষেত্রে আপনাদের জুডিশিয়াল মাইন্ড প্রয়োগ করতে হবে।
নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখা ও সমান সুযোগ তৈরি করার জন্য আপনাদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। দায়িত্ব পালনের সময় অতি-উৎসাহী হবেন না আবার নির্লিপ্তও থাকবেন না।’
নির্বাচনে আইন প্রয়োগের ক্ষেত্রে নির্বাচন কমিশন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের পাশে আছে বলে জানান কমিশনার কবিতা খানম। তিনি বলেন, তবে পক্ষপাতমূলক আচরণ খাটো করে দেখবে না কমিশন।
কবিতা খানম বলেন, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও সেনা বাহিনী আপনাদের নির্দেশের অপেক্ষায় থাকবে। আপনারা তাদেরকে যথা সময়ে নির্দেশ দেবেন।

printer
সর্বশেষ সংবাদ
জাতীয় পাতার আরো খবর

Developed by orangebd