timewatch
১৬ এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, রাত ৮:৪২ মিনিট
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. কৃষি
  6. খুলনা
  7. খেলাধূলা
  8. গণমাধ্যম
  9. চট্রগ্রাম
  10. জাতীয়
  11. ঢাকা
  12. তথ্য-প্রযুক্তি
  13. ধর্মতত্ত্ব
  14. প্রকৃতি-পরিবেশ
  15. প্রবাস জীবন
শিরোনাম

‘বিএসপি পেকুয়া উপজেলা ঈদ পুনর্মিলনী’

প্রতিবেদক
উপজেলা প্রতিনিধি, পেকুয়া (কক্সবাজার)
জুলাই ১, ২০২৩ ২:১৯ অপরাহ্ণ

কক্সবাজার জেলার পেকুয়া উপজেলা পেকুয়া বাজার এসডি সিটি সেন্টার ৪র্থ তলা অডিটোরিয়াম হলে ১ জুলাই ২০২৩ খ্রিষ্টাব্দ শনিবার সকাল ১০টায় বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টি (বিএসপি) পেকুয়া উপজেলার ঈদ পুনর্মিলনী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন বিএসপি’র পেকুয়া উপজেলা সভাপতি অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুস কাদেরী এবং অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিএসপি’র পেকুয়া উপজেলা সাধারণ সম্পাদক জাকের হোছাইন । অনুষ্ঠানে উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টি (বিএসপি) কক্সবাজার জেলা সমন্বয়ক হাফেজ মাওলানা কেরামত আলী মাইজভান্ডারী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সেলিম উদ্দীন তাহেরি, হাফেজ মাওলানা কফিল উদ্দিন, মাওলানা জাকের উল্লাহ জালালী, কহিনুর ইসলাম মজিদি, মাওলানা নূরুজ্জামান নূরী, মাওলানা মনিরুজ্জামান নূরী, মাওলানা নাইমুল করিম, হাফেজ বদিউল আলম, ফকির শামসুল আলম, মোঃ আজিজুর রহমান (আজু), মোঃ হাবিবুর রহমান, কলিম উল্লাহসহ সংগঠনের জেলা ও উপজেলা নেতৃবৃন্দ। এতে আরো উপস্থিত ছিলেন মোঃ নেছার উদ্দীন, মনির আলম, উসমান গণী প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুস কাদেরী বলেন, বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টি নতুন ধারায় মদিনার সনদের আদলে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবার সহাবস্থান ও সম্প্রীতিপূর্ণ অহিংস রাজনীতির চর্চা করে। এই সংগঠন মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি হিসেবে দেশ গড়ার দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। সারা বাংলাদেশে ইতোমধ্যে এই সংগঠনের গ্রহণযোগ্যতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় পেকুয়া উপজেলায় বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টির কার্যক্রম গতিশীল নেতৃত্বের মাধ্যমে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থেকে পার্টির মাননীয় চেয়ারম্যান বিশ্ববরেণ্য ব্যক্তিত্ব হযরত শাহসুফি সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী’র হাতকে শক্তিশালী করার আহ্বান জানান অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুস কাদেরী।
উদ্বোধনী বক্তব্যে হাফেজ মাওলানা কেরামত আলী বলেন, বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টি (বিএসপি) নির্দিষ্ট তরিকতের বা গোষ্ঠীর সংগঠন নয়, এটি জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে ১৮ কোটি মানুষের প্লাটফর্ম। তাই এই সংগঠন দলমত, দরবার, তরিকা, মতাদর্শ নির্বিশেষে সকলের জন্য উন্মুক্ত। চলমান ধর্মে ধর্মে হানাহানি ও সহিংস রাজনীতি থেকে মুক্তি দিয়ে জাতিকে মদিনার সনদের আলোকে সমঅধিকার ও সম্প্রীতির মাধ্যমে জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করার প্রয়াস নিয়ে এগিয়ে যাওয়াই বিএসপির লক্ষ্য। তিনি তার বক্তব্যে সুফিবাদী তরিকত পন্থীদের বর্তমান প্রেক্ষাপটে রাজনৈতিক ময়দানে কাজ করার গুরুত্বের ওপর বিশেষ জোর দেন।

সর্বশেষ - ধর্মতত্ত্ব