timewatch
২৫ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, মঙ্গলবার, সকাল ১১:০২ মিনিট
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. কৃষি
  6. খুলনা
  7. খেলাধূলা
  8. গণমাধ্যম
  9. চট্রগ্রাম
  10. জাতীয়
  11. ঢাকা
  12. তথ্য-প্রযুক্তি
  13. ধর্মতত্ত্ব
  14. প্রকৃতি-পরিবেশ
  15. প্রবাস জীবন
শিরোনাম

ফিলিস্তিনে গণহত্যাকারীদের আন্তর্জাতিক আদালতে বিচার করতে হবে : শাহজাদা ড. সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী

প্রতিবেদক
স্টাফ রিপোর্টার
অক্টোবর ১৮, ২০২৩ ৫:৩০ অপরাহ্ণ

জামাতে ইসলামি মনে করে এ দেশে তারা ইসলামের লিজ নিয়েছে। প্রকৃতপক্ষে তারা কোনো ইসলামি দল নয়। তারা ইসলামের কথা বললেও আমেরিকার দালালি করে। তাই ফিলিস্তিনের গণহত্যার বিষয়ে তারা কোনো কথা বলছে না।
১৭ অক্টোবর ২০২৩ মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা জিগাতলা কেয়ারি কিসেন্ট টাওয়ারের একটি রেস্টুরেন্টে লিবারেল ইসলামিক জোটের উদ্যোগে আলেম ওলামাদের সাথে মতবিনিময় সভায় বাংলাদেশ সুপ্রিম পার্টি (বিএসপি) ও লিবারেল ইসলামিক জোটের চেয়ারম্যান শাহজাদা ড. সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, সত্তর বছর ধরে ফিলিস্তিনের জনগণের ওপর পরাশক্তিগুলোর সহায়তায় ইজরাইল যে বর্বরতা চালাচ্ছে তা রুখতে হলে আল্লাহর পক্ষ থেকে পবিত্র মক্কা শরীফ রক্ষার ন্যায় আবাবিল পাখির প্রয়োজন রয়েছে। অবশ্য আবাবিল পাখি নাজিল হলে মুনাফিক মুসলমানদেরকেই আগে ধ্বংস করবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। জোট চেয়ারম্যান বলেন কে হাত কোথায় বাঁধলো না বাঁধলো তা না দেখে পবিত্র কুরআনকে গবেষণা করে মুসলমানদেরকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি আরো বলেন মিডিয়াতে জামাত শিবির তাদের একটা অবস্থান তৈরি করে নিয়েছে। লিবারেল ইসলামিক জোটের সাইবার টিমকে শক্তিশালী করে জামাত শিবিরের অপপ্রচারের বিরুদ্ধে আলেম ওলামাকে শক্রিয় হতে হবে। সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী বলেন দুনিয়ার কোনো লোভ লালসা আমাদেরকে ইসলাম থেকে দূরে সরাতে পারবে না।
কাওমি আলেম ওলামা সম্পর্কে তিনি বলেন, ২০১৮ সনে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমি ফটিকছড়ি থেকে নির্বাচন করেছি। সে সময়ে কাওমি মাদ্রাসায় গিয়েছি ভোট চাওয়ার জন্য। কিন্তু আমি তাদের মধ্যে কোনোরূপ প্রতিহিংসা বা বিভাজন দেখি নাই। ফটিকছড়ির কাওমি মাদ্রাসার আলেম ওলামারা আমাকে সাদরে গ্রহন করেছে এবং তারা আমাকে যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কাওমি আলেম ওলামারা সেই কথা রক্ষা করেছেন। তাদের নিয়ন্ত্রিত ভোট কেন্দ্রগুলোতেই আমি ভোট বেশি পেয়েছি। সেই থেকে আমি বুঝতে পেরেছি কাওমি আলেম ওলামারা কাউকে কোনো কথা দিলে ওয়াদার বরখেলাপ করেন না। এইজন্য আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই।তিনি বলেন, আমরা সবসময় ইসলাম ও জনগণের পক্ষে কাজ করেছি ভবিষৎতেও এ ধারা অব্যাহত থাকবে। ইনশা আল্লাহ! সৈয়দ সাইফুদ্দীন আহমদ মাইজভাণ্ডারী বলেন দেশের জনসংখ্যার অর্ধেকের বেশি নারী। তাই তাদেরকে ঘরে বন্দি করে না রেখে দেশের উন্নয়নে কাজে লাগাতে হবে। এজন্য নারীদের ঘরে বাহিরে ও কর্মক্ষেত্রের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। তিনি বলেন আমরা ইসলামের মূল ধারা। ইসলাম ও মানুষের পক্ষে কথা বলার জন্য রাজনীতি করতে এসেছি; কারো দালালি করতে নয়। যারা ফিলিস্তিনে মুসলমানদের প্রতি ঘটে যাওয়া অন্যায় অবিচারের কথা না বলে আমেরিকার দালালি করে ঐক্যবদ্ধ ভাবে তাদের প্রতিরোধ করতে হবে।
মতবিনিময় সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন বাংলাদেশ ইসলামি ঐক্য জোটের চেয়ারম্যান ও লিবারেল ইসলামিক জোটের নির্বাহী চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান চৌধুরী। তিনি বলেন পৃথিবীতে অনেক অন্যায় হচ্ছে। কিন্তু ফিলিস্তিনের জনগণের ওপর নজিরবিহীন নির্যাতনের নগ্ন সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে আমেরিকা ও তার মিত্ররা। অথচ তারা কখনো গণতন্ত্র, কখনো সুষ্ঠু নির্বাচন, কখনো মানবাধিকার লঙ্ঘনের নামে অনেক শান্তিপ্রিয় দেশকে জোরপূর্বক ধ্বংস করেছে। তারা পৃথিবীতে খাদ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়ে মানুষ মারার জন্য অস্ত্রের দাম কমিয়ে দিয়েছে বলে তিনি মত প্রকাশ করেন। অনুষ্ঠানে লিবারেল ইসলামিক জোটের পক্ষে বক্ত্যব রাখেন আশিক্বীনে আউলিয়া ঐক্য পরিষদ বাংলাদশের চেয়ারম্যান ও জোটের কো-চেয়ারম্যান শাহ্সূফী সৈইয়্যেদ আলম নূরী আল সুরেশ^রী, কৃষক শ্রমিক পার্টির চেয়ারম্যান ও জোটের কো- চেয়ারম্যান এবং সমন্বয়ক ফারাহনাজ হক চৌধুরী, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির চেয়ারম্যান ও জোটের কো-চেয়ারম্যান হাসরত খান ভাসানী, বাংলাদেশ জনদলের পক্ষে মহাসচিব সেলিম আহমেদ, লিবারেল ইসলামিক জোটের মহাসচিবদের সমন্বয়ক ও বিএসপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ সরকার, বাংলাদেশ ইসলামি ঐক্য জোটের মহাসচিব মুফতী মাওলানা মনিরুজ্জামান রব্বানী, ন্যাপভাসানীর মহাসচিব খালেদ সাহরিয়ার, আশিক্বীনে আউলিয়া ঐক্য পরিষদ বাংলাদশের মহাসচিব আল্লামা হানিফ নূরী, কেএসপির মহাসচিব গোলাম মুর্শেদ সুজন, আলেম ওলামাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুফতি তাজুল ইসলাম, মাওলানা মুকতার হোসেন, মাওলানা জয়নুল আবেদীন, মুফতি মাওলানা আবু হানিফা, মাওলানা কাজী মোহাম্মদ আবুল হাসান শেখ শরীয়তপুরী, মুফতি মোহাম্মদ জোবায়ের, কাজী আবুল হাসান, মুফতি মাকসুদুর রহমান, মাওলানা মোঃ আব্দুস সবুর, মুফতি সহিদুল ইসলাম, মাওলানা আবু সাঈদ প্রমুখ। মতবিনিময় সভায় আগামী ২১ শে অক্টোবর ঢাকা জাতীয় মসজিদ বাইতুল মুকাররমের দক্ষিণ গেইটে লিবারেল ইসলামিক জোটের মহাসমাবেশকে সফল করার জন্য আলেম ওলামাদের প্রতি আহবান জানানো হয়।

সর্বশেষ - আইন-আদালত