timewatch
২৫ মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, শনিবার, রাত ৮:৩৪ মিনিট
  1. অন্যান্য
  2. অর্থনীতি
  3. আইন-আদালত
  4. আন্তর্জাতিক
  5. কৃষি
  6. খুলনা
  7. খেলাধূলা
  8. গণমাধ্যম
  9. চট্রগ্রাম
  10. জাতীয়
  11. ঢাকা
  12. তথ্য-প্রযুক্তি
  13. ধর্মতত্ত্ব
  14. প্রকৃতি-পরিবেশ
  15. প্রবাস জীবন
শিরোনাম

‘তামান্না ভাটিয়ার অভিনেত্রী হওয়াই ছিল জীবনের লক্ষ্য

প্রতিবেদক
টাইমওয়াচ ডেস্ক
জুলাই ৪, ২০২৩ ১১:০৫ পূর্বাহ্ণ

সম্প্রতি বিজয় বর্মার সঙ্গে প্রেমের কারণে খবরের শিরোনাম হচ্ছেন তামান্না ভাটিয়া। তবে শিরোনাম হওয়ার মতো আরো অনেক কিছুই ছিল তার হাতে। দক্ষিণের জনপ্রিয় অভিনেত্রী তিনি। এছাড়া হাতেও আছে বেশকিছু সিনেমা। এর মধ্যে এ সপ্তাহে স্ট্রিম হচ্ছে নেটফ্লিক্সের সিনেমা ‘‌লাস্ট স্টোরিজ টু’। এর আগে লাস্ট স্টোরিজ দারুণ জনপ্রিয় হয়েছিল। সে ধারাতেই একাধিক গল্প ও নির্মাতাদের নিয়ে তৈরি হয়েছে লাস্ট স্টোরিজ টু। আর তাতেই অভিনয় করেছেন তামান্না। এ সিনেমার প্রচারণার সময় তিনি জানিয়েছেন অভিনেত্রী হওয়াই ছিল তার জীবনের লক্ষ্য। একসময় তাকে রীতিমতো নারীসুলভ চালচলন শিখতে বাধ্য করা হয়েছিল।

সিনেমা ইন্ডাস্ট্রিতে তামান্না এসেছেন প্রায় দুই দশক আগে। শুরুটা তার জন্য অনেকটাই কঠিন ছিল। তামান্না সে সময় নারীসুলভ চালচলনে অভ্যস্ত ছিলেন না। সম্প্রতি এসব স্মরণ করে তিনি বলেন, ‘‌আমাকে বলা হয়েছিল আমি গলির মাস্তানদের মতো হাঁটি (‘‌‘‌ভাই’’দের মতো)।’ বারখা দত্তের মোজো স্টোরিতে তিনি বলেন, ‘একজন প্রযোজক আমাকে বলেছিলেন, আমি হাঁটাচলা করি বা কোনো অভিব্যক্তি দেয়ার সময় সেটা যদি রাগের হয় বা আমি মারামারিও করি, সেখানে আমাকে নারীসুলভ দেখাতে হবে। এখন ভাবলে হাসি পায় যে আমাকে নারীদের মতো হাঁটা শিখতে হয়েছিল। কেননা সিনেমা সেটাই চায়।’

তামান্না জানান, ক্যারিয়ারের শুরুতে তাকে এ কথা বলার পর প্রশিক্ষণ শুরু হয়। আসলে ছোটবেলা থেকেই তিনি ছিলেন ডাকাবুকো। তামান্না বলেন, ‘‌আসলে স্কুলে আমি দাদাগিরি করতাম। মারামারি করে শিঙাড়া নিয়ে নিতাম। স্কুলের গুণ্ডা ছিলাম আরকি। কিন্তু আমি এ ব্যাপারে নিশ্চিত ছিলাম যে আমাকে একজন অভিনেত্রী হতে হবে। শিফনের শাড়ি পরে নাচা ছিল আমার স্বপ্ন। সেটাকেই পরে লক্ষ্য হিসেবে দেখতে শুরু করি।’

তবে নিজের স্বভাব ও অভ্যাস থেকে বেরিয়ে আসা তামান্নার জন্য কঠিন ছিল। রীতিমতো ক্লান্ত হয়ে পড়তেন তিনি। তামান্না বলেন, ‘‌ব্যাপারটা আমাকে শারীরিকভাবে ক্লান্ত করে ফেলেছিল। পিঠে ব্যথা হতো প্রতিদিন। সবসময় মনে রাখতে হতো কীভাবে চলছি। এরপর আস্তে আস্তে লোকের কথায় কান দেয়া বন্ধ করেছিলাম। আমি বুঝতে শুরু করেছিলাম, আমার নিজের কী করা উচিত। কোনটা নারীসুলভ আর কোনটা আমার করা উচিত, সেটা নিজেই সিদ্ধান্ত নিতাম।’

তামান্না অভিনীত দক্ষিণী সিনেমা ‘‌পো অরু কাদেন’ ও বলিউড সিনেমা ‘‌বোলে চুড়িয়া’ বর্তমানে পোস্ট প্রডাকশনে আছে। বোলে চুড়িয়া সিনেমাটি নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকীর জীবনীনির্ভর। এছাড়া নেলসন দিলীপ কুমার পরিচালিত জেলার এ বছর মুক্তি পাওয়ার কথা। সিনেমাটিতে রজনীকান্তের বিপরীতে দেখা যাবে তামান্নাকে।

সূত্র: দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

সর্বশেষ - আইন-আদালত